অনলাইনে তথ্যের নিরাপদ সংরক্ষণ

অনেক ভাবেই আমাদের কম্পিউটার থেকে তথ্য (ফাইল) মুছে যেতে পারে বা চুরি হতে পারে অতি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। কিন্তু আমরা যদি অনলাইনে আমাদের প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো (ফাইলগুলো) আপলোড করে রাখি তাহলে সেগুলো যেমন অধিক সুরক্ষিত থাকবে। তেমনই হাতের কাছে নিজের কম্পিউটার না থাকলেও যেকোন সাইবার ক্যাফে বা অন্যের কম্পিউটার (অনলাইন যুক্ত) থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারি। অনলাইনে ফাইল স্টোরের আরো সুবিধা হচ্ছে এখানে আপলোড করা ফাইল যেমন অন্যকে শেয়ার দেওয়া যায় তেমনই বিনামূল্যে নিজের তৈরী ওয়েবসাইটের লিংকে ব্যবহার করা যায়। বিনামূল্যে পাওয়া ওয়েব হোষ্টিংয়ে বড় ফাইল আপলোড করা যায় না ফলে এখানে আপলোড করা বড় সাইজের ফাইল যুক্ত করা যায়। বিনামূল্যে অনলাইনে ফাইল ষ্টোর করা বা অনলাইন ড্রাইভ ব্যবহার করা যায়। এমনই কিছু ওয়েবসাইটের ঠিকানা ও সুবিধা দেওয়া হলো যা আপনার তথ্যকে নিরাপত্তা দেবে।

Gmail Drive জিমেইলে যাদের একাউন্ট আছে তারা জিমেইল ড্রাইভ ইনষ্টল করে অতিরিক্ত জিমেইলের সমপরিমান যায়গার অনলাইনে একটি ড্রাইভের পাওয়া যাবে। http://www.herbsforlife.nl/download থেকে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে সেটআপ করলে আপনার কম্পিউটারের Gmail Drive নামে একটি নতুন ড্রাইভ আসবে। এই জিমেইল ড্রাইভ জিমেইলের আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে সাধারণ ড্রাইভের মত ব্যবহার করতে পারবেন। এখানকার সুবিধা হচ্ছে এই ড্রাইভে যে ফাইলই পোষ্ট করুন না কেন তা আপনার মেইলে সয়ংক্রিয়ভাবে সংযুক্ত মেইল হিসাবে পৌছে যাবে।

http://www.mediamax.com: মিডিয়াম্যাক্সে খুব সাধারণ ভাবে রেজিষ্ট্রেশন করে অনলাইনে ২৫ গিগাবাইটের যায়গা পাওয়া যাবে। এখানে অডিও, ভিডিও, এমপিথ্রি, ইমেজ ফাইল এবং বিভিন্ন ফরমেটের ফাইল আপলোড ও শেয়ার করা যাবে। এই সাইটে সবচেয়ে বড় দিক হচ্ছে এখানে যেকোন সাইজের ফাইল সহজে আপলোড করে রাখতে পারবেন।

http://www.xdrive.com: আমেরিকা অনলাইন লিমিটেড (AOL) বিনামূল্যে ৫ গিগাবাইট অনলাইন যায়গা দিচ্ছে। এখানে ফটো, মিউজিক, ভিডিও বা অন্য যেকোন ধরণের ফাইল আপলোড করা যাবে। এখানে পাওয়ার টুলসের সাহায্যে সহজে ফাইলগুলো দেখা বা ডাউনলোড করা যাবে।

http://www.inbox.com: বর্তমানে জিমেইল ও ইয়াহু হচ্ছে বিনামূল্যে ই-মেইল সেবাদানকারী সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান। জিমেইল ২ গিগাবাইটের এর অধিক এবং ইয়াহু ১ গিগাবাইট ই-মেইল যায়গা দিচ্ছে। তেমনই ইনবক্স দিচ্ছে ২ গিগাবাইট যায়গা। এখানে রেজিষ্ট্রেশন করতে গ্রামীণফোন এর মোবাইলের প্রয়োজন হবে। এখানে সবর্চ্চো ২০ মেগাবাইটের ফাইল ফাইল আপলোড করা যাবে। তবে সুবিধা হচ্ছে এক কিকেই ষ্টোরে থাকা ফাইলকে মেইলের এটাসমেন্ট আনা যাবে বা এটাসমেন্টের ফাইলগুলোকে ষ্টোরে রাখা যাবে।

http://briefcase.yahoo.com: ইয়াহুতে যাদের ই-মেইল একাউন্ট আছে তারা ইয়াহু ব্রিফকেসে ৩০ মেগাবাইট পর্যন্ত ফাইল আপলোড করতে পারবেন। এখানে সর্বোচ্চ ৫ মেগাবাইটের ফাইল ফাইল আপলোড করা যাবে। এছাড়াও ইয়াহু ফটোতে ৩০ মেগাবাইট পর্যন্ত ফটো আপলোড করা যাবে।

http://www.esnips.com: ই-স্নিপস বিটা সহজে রেজিষ্ট্রেশন করে বিনামূল্যে ৫ গিগাবাইট যায়গা পাওয়া যাবে। এখানে যেকোন ধরণের ওয়েব ফাইল, অডিও, ভিডিও বা ডকুমেন্টস ফরমেটের ফাইল আপলোড করা যাবে। ফাইলগুলোকে প্রাইভেট, পাবলিক বা নির্দিষ্ট ইউজারের জন্য শেয়ার করা যাবে।

http://www.drivehq.com: ড্রাইভ হোটকোয়াটারসে বিনামূল্যে ১ গিগাবাইট যায়গা পাওয়া যাবে। এখানে এফটিপি সার্ভার বা এদের নিজস্ব সফটওয়ারের সাহায্যে ফাইল আপলোড করা যাবে। সেইসাথে ডাটা শেয়ারের ব্যবস্থাও রয়েছে।

http://storage.vmn.net: ভিএমএস ডট নেটে বিনামূল্যে রেজিষ্ট্রেশন করে ১ গিগাবাইট যায়গায় ফাইল রাখা যাবে। এখানে ফাইল ম্যানেজারের সাহায্যে সহজে ফাইল আপলোড ও শেয়ার করা যাবে।

http://www.box.net: বক্স ডট নেটেও বিনামূল্যে ১ গিগাবাইট যায়গা পাওয়া যাবে। এখানে ফোল্ডার গুলোকে প্রাইভেট ও পাবলিক হিসাবে আপলোড করা যাবে। বক্স ডট নেটের সুবিধা হচ্ছে এখানকার ফাইল মোবাইলেও একসেস (ডাউনলোড ও আপলোড) করা যাবে এবং ফটো গ্যালারী তৈরী করা যায়।

এছাড়াও http://www.web-a-file.com, http://www.uploadraid.com, http://www.anytimenow.com, http://www.tradebit.com, http://www.HyperOffice.com ওয়েবসাইট থেকেও বিনামূল্যে ফাইল আপলোড, সংরক্ষণ ও ডাউনলোডের ব্যবস্থা আছে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: