প্রিয়া (বাংলা কবিতা)

প্রিয়াঃ আমি যখন থাকবো না মর্ত্যলোকের রিক্তপুরে;
হইতো আমি হারিয়ে যাব গভীর কোন অন্ধকারে;
আমোরি দেওয়া স্মতির মেলা রইবে কি তোমার হৃদয় জুড়ে?
যেদিন তোমা দেখিনু প্রথম;
প্রথম মোদের সেই যে কথন,
দেবে কি তোমা ক্ষণ রোদন
ভ্রমেও কভু আমোর তরে?
ফুটবে যখন রক্ত গোলাপ আমোরি এই বুকটি চিরে,
প’ড়বে কি তোমা দৃষ্টি সীমা নির্জনে মোর সমাধি পরে?

গভীর রাতে হইতো কভু দেখবে তুমি আমার স্বপন;
হইতো তোমা থাকবে পার্শ্বে আমোরই মতো অন্য স্বজন;
আমোর স্মৃতি আমোরই ছোয়া দেবে কি তোমা গহিন বেদন?
মাথা রেখে এ বুকেতে
বলেছিলে থাকবে সাথে;
সে কথা কি স্বপন রাতে,
ঝরায় অশ্রু আমোরই মতোন?
যেদিন আমি পালিয়ে গেলুম ছিন্ন করে সকল বাধন,
যেদিন সে বর্ষ আসবে ঘুরে প’ড়বে কি মনে আমার কথন?

খোলা গগনে বসবে যখন চাঁদনী আলো প’ড়বে মুখে;
চাঁদের মাঝে খুঁজবে আমায় একা আছি কেমন সুখে;
এমনই এক চাঁদনী রাতে ঝরবে অশ্রু কোন সে দুখে?
রজনীর সেই যে ক্ষণে,
চেয়েছিলে আমারই পানে;
কভু কি তোমা আমোর তানে,
ঝরেছে অশ্রু মর্ত্যলোকে?
শেষ দেখাতে, শেষ বেলাতে, আমোরই দু’নয়ন দেখে;
কি পেয়েছো, কি রেখেছো যে, অশ্রু ঝরে এখনও সুখে?
০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০০

(১২ মাঘ ১৪০৬/পিয়ারপুর, কুষ্টিয়া)

One Response to “প্রিয়া (বাংলা কবিতা)”


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: