কাঙাল হরিনাথের ১১২তম মৃত্যুবার্ষিকী

আজ গ্রামীণ সমাজের নবজাগরণ ও সাংবাদিকতার পথিকৃৎ কাঙাল হরিনাথ মজুমদারের ১১২তম মৃত্যুবার্ষিকী। কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই পালিত হচ্ছে দিনটি। অথচ ঊনবিংশ শতাব্দীর কালজয়ী সাধক, সাংবাদিক, সাহিত্যিক ও নারী জাগরণের অন্যতম দিকপাল ছিলেন তিনি। ইংরেজ নীলকর, জমিদার, পুলিশ ও শোষক শ্রেণীর বিরুদ্ধে হাতে লেখা পত্রিকা নিয়ে দাড়িয়েছিলেন নিপীড়িত মানুষের পাশে। তার ‘গ্রামবার্ত্তা প্রকাশিকা’ গ্রামীণ-স্বার্থ সংরক্ষণে অল্পদিনেই অধিকার বঞ্চিত মানুষের হাতিয়ার হয়ে উঠেছিল। Read the rest of this entry »

Advertisements

লালন শাহ (কুষ্টিয়া-১৭৭২-১৮৯০)

লালন শাহ(কুষ্টিয়া-১৭৭২-১৮৯০):বাউল সাধনার প্রধান গুরু, বাউল গানের শেষ্ঠ রচয়িতা এবং গায়ক। তার জন্ম সাল নিয়ে মতান্তর রয়েছে। লালন শাহ এক তীর্থভ্রমণে বের হয়ে বসন্ত রোগে আক্রন্ত হয়। এমতবন্থায় তার সহযাত্রীরা তাকে ত্যাগ করলে সিরাজ সাইঁ তাকে তার বাড়িতে আশ্রয় দেয় এবং তাকে সুস্থ করে তোলে। এরপর লালন তার কাছ থেকে বাউলধর্মে দীক্ষিত হন এবং কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানার ছেউড়িয়াতে একটি আখড়া তৈরী করেন। নিসন্তান লালনের কোন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছিল না। তিনি নিজ সাধনা বলে হিন্দু-মুসলিম ধর্মের উপরে গভীর জ্ঞান লাভ করেন। Read the rest of this entry »

আমার কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়া অতীতে অবিভক্ত ভারতের নদীয়া জেলার অংশ ছিলো। কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা এবং মেহেরপুর নিয়ে ১৯৪৭ সালে নতুন জেলার গঠিত হয়। বর্তমানে চুয়াডাঙ্গা এবং মেহেরপুর আলাদা আলাদা জেলা। কুষ্টিয়া জেলাতে ৭টি থানা (কুষ্টিয়া সদর, কুমারখালী, দৌলতপুর, মীরপুর, ভেড়ামারা, খোকসা এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়), ৪টি পৌরসভা, ৬১টি ইউনিয়ন, ৭১০ মৌজা এবং ৯৭৮টি গ্রাম রয়েছে।
দর্শনীয় স্খান: কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের কুঠিবাড়ী, লালন শাহের মাযার, মীর মশাররফ হোসেনের বাস্তিভটা, নফর শাহের মাযার, দরবেশ সোনা বন্ধুর মাযার, জঙ্গলী শাহের মাযার, মহিষকুন্ডি নীলকুঠি, কালীদেবী মন্দির ইত্যাদি। এছাড়াও ১০টি গণকবর, ১১টি স্মৃতিস্তম্ভ এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে স্মারক ভাস্কর্য ‘মুক্তবাংলা’। Read the rest of this entry »